৯৯৯ নম্বরে শাহান মিয়ার ফোনে বাঁচলো বহু প্রাণ

31

মধ্যরাতে ট্রেনযাত্রা। আকস্মিক সেতু ভেঙে ট্রেনের বগি ছিটকে পড়ল খালে। যাত্রীদের আর্তনাদে ছুটে আসল আশপাশের বাসিন্দারা। তাদেরই একজন শাহান মিয়া। শাহান মিয়ার উপস্থিত বুদ্ধিতে উপবন এক্সপ্রেস ট্রেনের বহু যাত্রীর প্রাণ বাঁচলো। দুর্ঘটনার ভয়াবহতা আঁচ করতে ফেরে তাৎক্ষণিক ফোন দেন জরুরি সেবার নম্বর ৯৯৯-এ। ফোন পেয়ে উদ্ধারকাজে ছুটে আসে পুলিশ।

রোববার রাত পৌনে ১২টার দিকে মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় বরমচাল সেতু ভেঙে উপবন এক্সপ্রেস ট্রেনের একটি বগি ছিটকে পড়ে খালে। উল্টে যায় আরও দুটি বগি। এতে নিহত হন কমপক্ষে পাঁচজন। আহত হন আড়াই শতাধিক যাত্রী।

আরও পড়তে পারেন :  মেসিডোনিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি তরুণ নিহত

দুর্ঘটনার পরপরই ৯৯৯ নম্বরে ফোন দেন শাহান মিয়া। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার অভিযানে নামে পুলিশ। কুলাউড়ার আকিলপুর গ্রামের বাসিন্দা শাহান মিয়া কুলাউড়া ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী।

তিনি বলেন, আমি বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলাম। বরমচাল সেতুর অনেকটা দূরে আমি তখন। হঠাৎ বিকট শব্দ কানে আসে। সেই সঙ্গে ভেসে আসে মানুষের কান্না, চিৎকারের শব্দ। দূর থেকে তাকিয়ে দেখি, বরমচাল সেতু ভেঙে ট্রেনের বগি নিচে। ঘটনার ২-৩ মিনিটের মধ্যেই আমি ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিই। যদি সময়মতো পুলিশ না আসত আরও অনেক মানুষের প্রাণহানি ঘটতো।

আরও পড়তে পারেন :  অধ্যাপক মোজাফফরের প্রথম জানাজা জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায়

কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফেরদৌস হাসান বলেন, রাত ১২টার কিছুক্ষণ আগে এক ব্যক্তি ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে ট্রেন দুর্ঘটনার খবর জানায়। তখনই ঘটনাস্থলের উদ্দেশে রওনা দিই।

বিনিয়োগ বার্তা//এল//

 

আপনার মতামত দিন :

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here