৫টি সোলার বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের প্রস্তাব অনুমোদন

142
solar-biddut

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিনিয়োগ বার্তা:

দেশের ক্রমবর্ধমান বিদ্যুতের চাহিদা মেটাতে ফসিল ফুয়েলের পাশাপাশি নবায়নযোগ্য জ্বালানিকেও গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। এই প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে আরো ২২৭ মেগাওয়াট সৌরবিদ্যুৎ যোগ হচ্ছে জাতীয় গ্রীডে। এ জন্য ৬ হাজার ৬৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৫টি সোলার বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের প্রস্তাব সম্প্রতি অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। সোলার বিদ্যুতকেন্দ্রগুলো জামালপুর, পঞ্চগড়, নীলফামারী ও মৌলভীবাজার জেলায় নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছে বিদ্যুৎ বিভাগ।
সূত্র জানায়, বিদ্যুৎ বিভাগের উল্লেখিত ৫ প্রকল্পের মধ্যে জামালপুর জেলার মাদারগঞ্জ উপজেলায় ১০০ মেগাওয়াট সোলার বিদ্যুৎ প্রকল্প স্থাপনের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ২ হাজার ৮৬৫ কোটি টাকা। এখানকার প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম ধরা হয়েছে ৮টাকা ৮৪ পয়সা। এটিই সবচেয়ে বড় সোলার প্রকল্প।
এছাড়া পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার অমরখানা ও শালাডাঙ্গা মৌজায় ১ হাজার ৩৭১ কোটি টাকা ব্যয়ে ৪৭ মেগাওয়াট সোলার বিদ্যুতকেন্দ্র স্থাপনের একটি প্রস্তাবও অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এই প্রকল্পে প্রতি ইউনিটের দাম পড়বে ৯ টাকা। অপর এক প্রকল্পের আওতায় একই জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলায় ৫৫৭ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে ২০ মেগাওয়াট সোলার বিদ্যুতকেন্দ্র স্থাপন করা হবে। এ প্রকল্পে উৎপাদিত প্রতি ইউনিটের দাম পড়বে ৮ টাকা ৬০ পয়সা।
অপরদিকে নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলায় ১ হাজার ৪৫২ কোটি টাকা ব্যয়ে ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন সোলার বিদ্যুতকেন্দ্র স্থাপন করা হবে। প্রতি ইউনিটের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৮ টাকা ৯৬ পয়সা। মৌলভীবাজার জেলার সদর উপজেলায় ১০ মেগাওয়াট সোলার বিদ্যুতকেন্দ্র স্থাপনে ব্যয় হবে ২৮৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা। প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম ধরা হয়েছে ৮ টাকা ৮০ পয়সা।
সূত্র জানায়, বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের শতভাগ পল্লী বিদ্যুতায়নের জন্য বিতরণ নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ১০ হাজার ট্রান্সফরমার ক্রয়ের একটি প্রস্তাবও অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ৬১ কোটি ৬০ লাখ টাকা। ফেনী জেলাধীন সোনাগাজী উপজেলায় মহুরী বাঁধ এলাকায় ৩০ মেগাওয়াটের একটি বায়ু বিদ্যুতকেন্দ্রও স্থাপন করা হবে। এতে মোট ব্যয় হবে ৯৩৩ কোটি ৬০ লাখ টাকা। প্রতি ইউনিটের দাম পড়বে ৮ টাকা ৮৮ পয়সা।
সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্পে নতুন ভাবে বিনিয়োগ সম্পর্কে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (বিপিডিবি) পরিচালক সাইফুল হাসান চৌধুরী বলেন, যেহেতু দেশে জ্বালানি সংকট রয়েছে সে কারনেই নবায়নযোগ্য জ্বালানিকে আমরা অগ্রাধিকার দিচ্ছি। তিনি বলেন, শুধু সৌরবিদ্যুৎ নয় পর্যায়ক্রমে আমরা বায়ূবিদ্যুতের উৎপাদনকেও গুরুত্ব দেব। এমনকি দেশে আরও কোন জলবিদ্যুৎ প্রকল্প করা যায় কিনা তা নিয়েও চলছে নানা পরীক্ষা নিরীক্ষা। কারন দেশের বিদ্যুৎ চাহিদা অনুযায়ী আমাদের এসব পদক্ষেপ নিতেই হবে।

আরও পড়তে পারেন :  জ্বালানি খাতে সমম্বিত অংশীদারিত্ব গড়ে তুলবে বাংলাদেশ ও ব্রুনাই

বিনিয়োগ বার্তা//এল//

 

আপনার মতামত দিন :

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here