স্প্রেডে নির্দেশনা ১৫ ব্যাংক মানছে না

0
5

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিনিয়োগ বার্তা:

ব্যাংকের আমানত ও ঋণের সুদহারের ব্যবধান (স্প্রেড) বিষয়ে মানেনি ১৫ ব্যাংক কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা । এপ্রিল শেষে ৫টি বিদেশি ও ১০টি বেসরকারি ব্যাংকের স্প্রেড ৫ শতাংশীয় পয়েন্টের বেশি ছিল। সবচেয়ে বেশি স্প্রেড রয়েছে বেসরকারি খাতের ব্র্যাক ব্যাংকের। ব্যাংকটির স্প্রেড আট দশমিক ৪৪ শতাংশ। এরপর রয়েছে বিদেশি খাতের স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের। যার স্প্রেড ৮ দশমিক ১৬ শতাংশ। বাংলাদেশ ব্যাংকের  প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

জানা গেছে, ব্যবসায়ীদের দীর্ঘদিনের দাবি ব্যাংক ঋণের সুদহার ১০ শতাংশের নিচে নামিয়ে আনা। সুদহারের বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক সরাসরি নিয়ন্ত্রণ না থাকলেও ব্যাংকগুলোকে সুদহার কমিয়ে আনার নির্দেশনা দিয়ে আসছে। স্প্রেড ৫ শতাংশের নিচে রাখার নির্দেশনা রয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংকের। তবে তা মানছে না অনেক ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, এপ্রিল মাসে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলো ঋণের ক্ষেত্রে গড়ে ৮ দশমিক ৬৮ শতাংশ হারে সুদ আদায় করেছে। আর আমানতের বিপরীতে দিয়েছে ৪ দশমিক ৭২ শতাংশ সুদ। স্প্রেড দাঁড়িয়েছে ৩ দশমিক ৯৬ শতাংশীয় পয়েন্ট।

এর মধ্যে বিশেষায়িত ব্যাংকের স্প্রেড সবচেয়ে কম; যা মাত্র ৩ দশমিক ৭ শতাংশীয় পয়েন্ট। বিশেষায়িত ব্যাংক আমানতের বিপরীতে দিয়েছে ৫ দশমিক ৯৯ শতাংশ সুদ। আর ঋণের ক্ষেত্রে নিয়েছে ৯ দশমিক ০৬ শতাংশ হারে।

বেসরকারি খাতের ১০ ব্যাংকের স্প্রেড ৫ শতাংশীয় পয়েন্টের ওপরে অবস্থান করছে। গত এপ্রিল মাসে বেসরকারি ব্যাংকগুলো ঋণের ক্ষেত্রে গড়ে ৯ দশমিক ৯৬ শতাংশ হারে সুদ আদায় করেছে। আমানতের বিপরীতে দিয়েছে ৫ দশমিক ২৫ শতাংশ সুদ; স্প্রেড দাঁড়িয়েছে ৪ দশমিক ৭১ শতাংশীয় পয়েন্ট।

বিদেশি ব্যাংকগুলোর স্প্রেড এখনো ৫ শতাংশীয় পয়েন্টের উপরে রয়েছে। বিদেশি ব্যাংকগুলো আমানতের বিপরীতে ১ দশমিক ৬৪ শতাংশ সুদ দিয়েছে। অন্যদিকে ঋণের বিপরীতে আদায় করেছে ৭ দশমিক ৯১ শতাংশ সুদ। এ খাতের ব্যাংকগুলোর স্প্রেড সবচেয়ে বেশি; ৬ দশমিক ২৭ শতাংশীয় পয়েন্ট।

স্প্রেড ৫ শতাংশীয় পয়েন্টের উপরের ব্যাংকগুলো হলো- বিদেশি ব্যাংকগুলোর মধ্যে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক, স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া, সিটি ব্যাংক এনএ, ওয়ারী ব্যাংক এবং এইচএসবিসি ব্যাংক।

বেসরকারি ব্যাংকগুলো হলো- দ্য সিটি ব্যাংক লিমিটেড, আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেড, উত্তরা ব্যাংক লিমি্টেড, ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড, ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড, প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেড, ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড, মেঘনা ব্যাংক লিমিটেড, ইউনিয়ন ব্যাংক লিমিটেড এবং মধুমতি ব্যাংক লিমিটেড।এর মধ্যে ব্র্যাক ব্যাংক আমানতে সুদ দিয়েছে ৩ দশমিক ৬৫ শতাংশ। আর ঋণের ক্ষেত্রে নিয়েছে ১২ দশমিক ০৯ শতাংশ। এতে ব্যাংকটির স্প্রেড দাঁড়িয়েছে ৮ দশমিক ৪৪ শতাংশ।

প্রতিবেদনে দেখা গেছে, গত এপ্রিল মাসে ব্যাংকগুলো ঋণের ক্ষেত্রে গড়ে ৯ দশমিক ৬২ শতাংশ সুদ আদায় করেছে। আমানতের বিপরীতে ৪ দশমিক ৯৭ শতাংশ সুদ প্রদান করেছে; ব্যাংকগুলোর গড় স্প্রেড ৪ দশমিক ৬৫ শতাংশীয় পয়েন্ট।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here