বেনাপোল স্থলবন্দরে তল্লাশির নামে যাত্রী হয়রানি চরমে

0
10

মোঃ সাহিদুল ইসলাম শাহীন,বেনাপোল প্রতিনিধি, বিনিয়োগ বার্তা:

বেনাপোল আর্ন্তজাতিক চেকপোষ্টে বর্ডারগার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) কর্তৃক ল্যাগেজ তল্লাশির নামে পাসপোর্টধারী যাত্রীদের হয়রানি চরম পর্যায়ে পৌছেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এবিষয়ে লিখিতসহ একাধিক অভিযোগ পাওয়া গেছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এতথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানা্য়, বন্ডেড এলাকার ৫ কিলোমিটারের ভিতরে পাসপোর্টধারী যাত্রীদের তল্লাশির নিয়ম না থাকলেও সকল কিছু উপক্ষো করে বেনাপোল কাষ্টমস গেটে যাত্রীদের ল্যাগেজ চেক করে হয়রানি করছে বিজিবি।
বাগেরহাট জেলার রামপাল থানার আরুয়াডাঙ্গা গ্রামের মজিদ হাওলাদের মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস (পাসপোর্ট নং এজি- ৬১৪৬২০৩) লিখিত অভিযোগে জানান, ভারতের কাষ্টমস তল্লাশি শেষে বাংলাদেশে প্রবেশ করে শুরু হয় বাংলাদেশী ইমিগ্রেশন কাষ্টমস তল্লাশির আনুষ্ঠানিকতা। সবশেষ করে কাষ্টমস গেট পার হলে শুরু হয়ে যায় বিজিবির তল্লাশি।
জান্নাতুল বলেন, তখন প্রচন্ড গরমে ল্যাগেজ নিয়ে বিজিবিকে অনুরোধ করে বলি ব্যাগে কোন অবৈধ মালামাল নেই। আর তখন বিজিবি ক্ষিপ্ত হয়ে রাস্তায় তল্লাশি না করে আবার পাঠায় ক্যাম্পে। ক্যাম্পে গিয়ে ব্যাগের সমস্ত মালামাল বের করে আবার গোছাতে গোছাতে একেবার নাজেহাল হয়ে পড়ি। তখন বিজিবিকে বললাম অযথা হয়রানি করে আপনাদের লাভ কি?
এছাড়া বেনাপোল চেকপোষ্টের একাধিক পাসপোর্টধারী যাত্রী অভিযোগ করে বলেছেন, বিজিবি পদে পদে ভারত ফেরত যাত্রীদের হয়রানি করে চলেছে। এরা প্রথমে শুরু করে কাষ্টমস গেটে এরপর শুরু হয় আমড়াখালী ও নতুন হাট নামক স্থানে। আবার বেনাপোল রেলষ্টেশনে ও মাঝে মধ্যে মাঝপথে ঝিকরগাছা এলাকায় ট্রেন থামিয়ে তল্লাশি শুরু করে বিজিবি।
ঢাকার বাসিন্দা আলমগীর হোসেন, রুবেল হোসেন, জাহিদুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, আমরা সরকারকে ৫০০ শত টাকা শুল্ক দিয়ে ভারত প্রবেশ করি। ভারতে আমাদের ব্যবসায়িক কাজে যেতে হয়। আসার সময় আমদানি পণ্যের কিছু স্যাম্পল নিয়ে আসতে হয়। বিজনেস পাসপোর্ট হওয়া সত্বেও আমাদের যে ভাবে বিজিবি ল্যাগেজ খুলে পন্য এলোমেলো করে, তাতে মনে হয় কোন সমাজে বসবাস করছি আমরা ।
তারা অভিযোগ করে আরো বলেন, আমরা দেখলাম বিজিবির সিদ্দিক নামে এক সদস্য অসুস্থ এক রোগীকে ক্যাম্পে নিয়ে নানাবিদ প্রশ্ন শুরু করেছে। বাংলাদেশে ডাক্তার নাই, কেন ভারতে চিকিৎসার জন্য যাওয়া হয় অযথা প্রশ্ন করে নাজেহাল করছে অসুস্থ্য একজন রোগীকে ।
এব্যাপারে জানতে চাইলে বেনাপোল কাষ্টমস সুপার তাহমিদ হোসেন জানান, বন্ডেড এলাকার ৫ কিলোমিটার এর ভিতর কাউকে বিশেষ তথ্য ছাড়া পাসপোর্টধারী যাত্রীর ল্যাগেজ চেক করার নিয়ম নেই। কিন্তু বিজিবি এটা তোয়াক্কা না করে ভালো মন্দ বাদ বিচার না করে প্রতিটি যাত্রীকে হয়রানি করছে বলে আমি শুনেছি।
৪৯ বিজিবি লে, কর্নেল আরিফুর রহমান বলেন, আমি জানি বেনাপোল চেকপোষ্ট দিয়ে অনেক ল্যাগেজ পার্টি আসে তার জন্য বিজিবি গেটে ও পথে চেক করে। যেসব বিজিবি সদস্যদের বিরুদ্ধে অসদাচরনের তথ্য প্রমাণ পাওয়া যাবে তাদের বিষয়ে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিনিয়োগ বার্তা/এমআর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here