পাঞ্জাবের কাছে দিল্লির হার

39

স্পোটর্স ডেস্ক:

ধাওয়ানের সেঞ্চুরিতেও রক্ষা হলো না দিল্লি ক্যাপিটালসের। আইপিএলের দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাঁড়ানো প্রীতি জিনতার দল কিংস ইলাভেন পাঞ্জাবের কাছে হারল দিল্লি।

আগের দুই ম্যাচে দুটি হাফসেঞ্চুরি হাঁকানোর পর গত ১৮ অক্টোবর চেন্নাইয়ের বিপক্ষে ‘সাইক্লোন সেঞ্চুরিত’ করেন শিখর ধাওয়ান।

এবার কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষেও টর্নেডো ইনিংস খেলে সেঞ্চুরি করলেন তিনি। ৬১ বলে ১২টি চার ও ৩টি ছক্কার মারে ১০৬ রানে অপাজিত থাকেন এই দিল্লির ওপেনার।

ধাওয়ান ছাড়া আর কেউ দাঁড়াতে পারেনি পাঞ্জাব বোলারদের কাছে। সোমবার রাতে ধাওয়ানের সেঞ্চুরির ওপর ভর করে দুবাই স্টেডিয়ামে ৫ উইকেটে ১৬৪ রানের লড়াকু সংগ্রহ দাঁড় করায় দিল্লি ক্যাপিটালস।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ২৫ রানের মাথায় পৃথ্বি শকে আউট করেন নিশাম। আজকেও উইকেটে থিতু হতে পারেননি ওপেনার পৃথ্বি শ। ১১ বলে মাত্র ৭ রান করে সাজঘরে ফেরেন। দ্বিতীয় উইকেটে অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ারকে নিয়ে জুটি গড়েন ধাওয়ান। এ জুটি ৩১ বলে ৪৮ রান যোগ করে।

আরও পড়তে পারেন :  ফুটবলের কিংবদন্তি ম্যারাডোনা আর নেই

১২ বলে ১৪ রান করে মুরুগান অশ্বিনের শিকার হন আইয়ার। এরপর রিষভ পন্থ ধাওয়ানের সঙ্গে আরেকটি ছোট জুটি গড়ে ১৪ রানে আউট হন।

পন্থকে ফেরান ম্যাক্সওয়েল। এরপর স্টইনিসকে সঙ্গী হিসেবে পান ধাওয়ান। সে জুটি ভেঙে দেন পেসার মোহাম্মদ সামি। ১০ বলে মাত্র ৯ রানে করে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় তাকে।

একইভাবে হেটমায়ারকে মাত্র ১০ রানে সাজঘরের পথ দেখিয়ে দেন সামি। কিন্তু দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ধাওয়ানের কিছু করতে পারেনি সামি-অশ্বিনরা। উল্টো পাঞ্জাব বোলারদের তুলোধুনো করে ৫৭ বলে তিন অংকের ম্যাজিক ফিগারে পৌঁছান ধাওয়ান।

আরও পড়তে পারেন :  গ্রেগ বারক্লে আইসিসির নতুন চেয়ারম্যান

নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৫ উইকেট খুইয়ে দিল্লির ব্যাটসম্যানরা ১৬৬ রানের টার্গেট ঝুলিয়ে দেয় পাঞ্জাবের সামনে।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে দিল্লিকে হেসেখেলে হারিয়েছে পাঞ্জাব। যদিও ৫৬ রানের মধ্যে দলের সেরা ৩ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বিপদে পড়ে পাঞ্জাব। লোকেশ রাহুলকে ১৫ রানে আউট করেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারে ভীষণ মারমুখী হয়ে ক্রিস গেইলের ব্যাটকেও থামিয়ে দেন অশ্বিনই।

তার ঘূর্ণি ডেলিভারিতে ১৩ বলে ২৯ রানে বোল্ড হন ক্যারিবীয় দানব। ওই ওভারেই ৫ রানে থাকা মায়াঙ্ক আগারওয়াল রানআউট হন ।

দলের এমন পরিস্থিতিতে ত্রাতা হয়ে আসেন নিকোলাস পুরান আর গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। বলতে দলকে খাদের কিনারা থেকে তুলে আনেন এই দুই ব্যাটসম্যান। ৪০ বলে ৬৯ রান যোগ করেন এই যুগল।

আরও পড়তে পারেন :  ঢাকাকে হারিয়ে রাজশাহীর জয়

১৩তম ওভারে রাবাদার বলে আউট হওয়ার আগে ২৮ বলে ৫৩ রানের চমৎকার এক ইনিংস খেলেন পুরান।

এতোদিন পর আজ ব্যাট কথা বলেছে ম্যাক্সওয়েলের। ২৪ বলে ৩২ রানের কেমিও ইনিংস এসেছে তার ব্যাট থেকে।

ম্যাক্সওয়েলকেও ফেরান রাবাদা।

এরপর দীপক হুদা আর জিমি নিশাম জুটি বেঁধে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যান সহজেই। হুদা ২২ বলে ১৫ এবং নিশাম বলে ১০ রানে অপরাজিত থাকেন।

এক ওভার আগেই টার্গেট ছুঁয়ে ফেলে পাঞ্জাব। এই জয়ের পরও পয়েন্ট টেবিলে কোনো পরিবর্তন আসেনি। কেননা দিল্লি এই হারের পরও শীর্ষে রয়েছে।

তবে এই জয় পেয়ে টুর্নামেন্টে নিজেদের আশাও বাঁচিয়ে রাখল প্রীতি জিনতার দল কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব।

বিনিয়োগ বার্তা//এল//

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here