নির্বাচনী প্রচারণায় একদিনে একই রাজ্যে দুই প্রার্থী

34

মার্কিন নির্বাচনের ‘ব্যাটল গ্রাউন্ড’ খ্যাত দুই রাজ্যের পর এবার এক দিনে একই রাজ্যে নির্বাচনী প্রচারণায় নামছেন দুই প্রেসিডেন্ট প্রার্থী।

বৃহস্পতিবার যথাক্রমে উইসকনসিন ও পেনসিলভানিয়ায় নির্বাচনী প্রচারণা শেষে গুরুত্বপূর্ণ রাজ্য মিনেসোটার দিকে রওনা হয়েছেন ক্ষমতাসীন রিপাবলিকান প্রার্থী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও বিরোধী ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী জো বাইডেন।

প্রধানত মিনেসোটার খনি শ্রমিক ও মধ্যবিত্ত ভোটারদের মন জয়ের লক্ষ্যে শুক্রবার সকাল থেকেই প্রচারণা শুরু করবেন তারা। তবে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উভয়ের কেউই তাদের গন্তব্যে পৌঁছেননি।

যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আর মাত্র ৪৬ দিন বাকি। নির্বাচন সামনে রেখে প্রধান দুই দলের জোর প্রচারণা চলছে। একের পর এক রাজ্যে ছুটে চলেছেন দুই প্রার্থী ট্রাম্প ও বাইডেন। যাচ্ছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে।

চলতি সপ্তাহে ফ্লোরিডায় প্রচারণা শেষ করেই বৃহস্পতিবার ‘ব্যাটল গ্রাউন্ড’ খ্যাত পেনসিলভানিয়ায় যান বাইডেন। মনোনয়ন পাওয়ার পর প্রথমবারের জন্য ভোটারদের সঙ্গে মুখোমুখি আলোচনায় বসেন।

আরও পড়তে পারেন :  করোনায় সুস্থ তিন কোটি ৬ লাখ

এদিন রাতে পেনসিলভানিয়ার স্ক্রানটনের টাউন হলে ভোটারদের নিয়ে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বাইডেন ট্রাম্পকে ‘সম্পূর্ণ অযৌক্তিক মানুষ’ বলে আখ্যা দেন।

বলেন, ‘সম্পূর্ণ অযৌক্তিক কর্মকাণ্ড’র মাধ্যমে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

তার কারণেই হাজার হাজার মানুষকে জীবন দিতে হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট যদি শুরু থেকেই তার নিজের কাজটুকু ঠিকভাবে করতেন, তাহলে এত মানুষের প্রাণহানি হতো না।’

অন্য দিকে ক্যালিফোর্নিয়ায় প্রচারণা শেষ করেই আরেক ‘সুইং স্টেট’ খ্যাত উইসকনসিনে ছুটে যান ট্রাম্প। যোগ দেন নির্বাচনী সমাবেশে। বৃহস্পতিবার রাতে রাজ্যের মসিনি শহরের এক বিমানবন্দরে এক সমাবেশে যোগ দিয়ে বাইডেনকে আরেকবার আক্রমণ করেন ট্রাম্প।

বলেন, ‘রিপাবলিকান ও ডেমোক্রেটিকদের পৃথক পৃথক ভিশন, দর্শন ও এজেন্ডা রয়েছে। তবে রিপাবলিকানরা আইনশ্ঙ্খৃলার পক্ষে। আর ডেমোক্র্যাটরা বিশৃঙ্খলা চায়।’

আরও পড়তে পারেন :  মার্কিন নির্বাচন: আগাম ভোটে এগিয়ে বাইডেন

গত মাসে উইসকনসিনের কেনোশায় ঘটে যাওয়া শ্বেতাঙ্গ-কৃষ্ণাঙ্গ সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি আরও বলেন, ‘বাইডেনের পরিকল্পনা অভ্যন্তরীণ সন্ত্রাসীদের সন্তুষ্ট করা। কিন্তু আমি চাই, ওসব সন্ত্রাসীকে জেলে ভরতে।’ এ সময় বাইডেনকে ‘মানসিক রোগী’ বলেও উপহাস করেন ট্রাম্প।

দ্য হিল জানিয়েছে, ট্রাম্প ও বাইডেন যথাক্রমে উইসকনসিন ও পেনসিলভানিয়ায় প্রচারণা শেষে মিনেসোটার দিকে যাত্রা করেছেন। শ্রমিক ও মধ্যবিত্ত শ্রেণীর আবাস এই রাজ্যটি ১৯৭২ সাল থেকে ডেমোক্র্যাটদের দখলে। এবার এ রাজ্যটিতে জয় ছিনিয়ে নিতে মরিয়া হয়ে চেষ্টা করছেন ট্রাম্প। এদিকে নিজ দলের ঘাঁটি দখলে রাখতে প্রাণপণে লড়ে যাচ্ছেন বাইডেনও।

এদিকে আগামী সপ্তাহেই শুরু হতে যাচ্ছে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশন (ইউএনজিএ)। কিন্তু এবার এই অধিবেশনে অংশ নেবেন না ট্রাম্প। বৃহস্পতিবার তার চিফ অব স্টাফ এয়ার ফোর্স ওয়ানে থাকা সাংবাদিকদের এমন কথা বলেন। এ সিদ্ধান্ত নিজের অবস্থান থেকে ট্রাম্পের বিপরীত দিকে ঘুরে যাওয়ার ইঙ্গিত।

আরও পড়তে পারেন :  ঘূর্ণিঝড়ের আশঙ্কায় পটুয়াখালীতে ৯০০ আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত

গত মাসে ট্রাম্প বলেছিলেন, করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বের অন্য নেতারা দূরে অবস্থান করলেও তিনি নিউইয়র্কে সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে সরাসরি উপস্থিত থেকে তার ভাষণ দিতে চান।

হোয়াইট হাউস চিফ অব স্টাফ এ বিতর্কের একেবারে ইতি টেনে উইসকনসিন রুটের সাংবাদিকদের বলেন, প্রেসিডেন্ট জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৫তম অধিবেশনে সরাসরি উপস্থিত থাকছেন না।

স্বাস্থ্যঝুঁকির কারণে এ অধিবেশন প্রধানত ভিডিওকনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হবে। এ বছরের ইউএনজিএ’র সপ্তাহব্যাপী মূল পর্ব ২১ সেপ্টেম্বর শুরু হয়ে ২৯ সেপ্টেম্বর শেষ হবে। এ পর্বে বিশ্ব নেতারা ভাষণ দিয়ে থাকেন।

মঙ্গলবারের উদ্বোধনী ভাষণে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস বিশ্বব্যাপী ‘শান্তি ও নিরাপত্তা, নিরস্ত্রীকরণ, মানবাধিকার রক্ষা, লিঙ্গ সমতা ও টেকসই উন্নয়নসহ’ মহামারী করোনাভাইরাস মোকাবেলার ওপর বেশি গুরুত্ব দেবেন।

বিনিয়োগবার্তা//এল//

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here