দুই নাতনিকে পাশে বসিয়ে ঈদের খাবার খেলেন খালেদা জিয়া

61
khaleda

কোরবানির ঈদের দুপুরে দুই নাতনির সঙ্গে ঈদুল আজহা পালন করেছেন বিএনপির চেয়ারপরসন খালেদা জিয়া। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে দুই নাতনিকে পাশে বসিয়ে বাসা থেকে রান্না করে আনা খাবার খেয়েছেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী।

স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঈদের দিন দুই নাতনিকে কাছে পেয়ে খুশি হয়েছেন অসুস্থতার কারণে কারা তত্ত্বাবধানে হাসপাতালে থাকা বিএনপি চেয়ারপারসন।

সোমবার দুপুরে মায়ের সঙ্গে বিএসএমএমইউতে যান প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর মেয়ে জাহিয়া রহমান ও জাফিয়া রহমান। হাসপাতালে গিয়ে তারা দাদীর পা ছুঁয়ে সালাম করেন। এ সময় তাদের বুকে জড়িয়ে আদর করেন খালেদা জিয়া।

আরও পড়তে পারেন :  গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার চার্জ শুনানি ফের পেছালো

কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথি বাসা থেকে শাশুড়ির জন্য খাবার রান্না করে নিয়ে যান। খাবারের মধ্যে ছিল পোলাও, মাংসের রেজালা, আলুর চপ, সবজি, জর্দা, দুধ-সেমাই ও মিষ্টি। খালেদা তার দুই নাতনিকে পাশে বসিয়ে খাবার খান। এ সময় সেবার জন্য তার সঙ্গে থাকা গৃহকর্মী ফাতেমা বেগমও ঈদের খাবার খান।

ঈদ উপলক্ষে কারা কর্তৃপক্ষ পরিবারের ছয় সদস্যকে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেয়। কোকোর স্ত্রী-কন্যারা ছাড়াও খালেদার ছোটভাই শামীম ইস্কান্দার, স্ত্রী কানিজ ফাতেমা ও তাদের ছেলে অভিক ইস্কান্দার গিয়েছিলেন দেখা করতে। বেলা দেড়টার দিকে হাসপাতালের কেবিন ব্লকে আসার পর প্রায় দুই ঘণ্টা তারা ছয় তলায় খালেদা জিয়ার কেবিনে কাটান।

আরও পড়তে পারেন :  মোজাফফর আহমেদকে শেষ শ্রদ্ধা জানাবেন প্রধানমন্ত্রী

পরিবারের ঘনিষ্ঠ একজন জানান, দুই নাতনির সঙ্গে ‘অন্যরকম সময়’ কাটিয়েছেন তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী। এর মাঝেও দেশবাসীর খোঁজ নিয়েছেন তিনি। দেশে কী হচ্ছে, কী পরিস্থিতি তাও জানতে চান। পরিবারের অন্যদের খোঁজ-খবরও নেন তিনি।

জানা গেছে, বিএসএমএমইউতে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন মহিলা দলের নেত্রী সুলতানা আহমেদ, সাবিনা ইয়াসমীনসহ জনা পনের নেতা-কর্মী। ছাত্রদলের কয়েকজন নেতা-কর্মীও সেখানে ছিলেন। তাদের অপেক্ষা করতে দেখা গেছে।

গত বছরের ৮ ফ্রেব্রুয়ারি থেকে দুর্নীতির দুই মামলায় ১৭ বছরের সাজা নিয়ে কারাবন্দি আছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। গত ১ এপ্রিল থেকে অসুস্থতার কারণে তাকে বিএসএমএমইউর ৬২১ নম্বর কেবিনে রাখা হয়েছে। কারাবন্দি অবস্থায় তিনি চতুর্থ ঈদ পালন করছেন।

আরও পড়তে পারেন :  সাপ্তাহিক লুজারের শীর্ষে সানলাইফ ইন্স্যুরেন্স

 

বিনিয়োগ বার্তা//এল//

আপনার মতামত দিন :

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here