তিন জেলায় সড়কে ঝরলো ৭ প্রাণ

36

সড়ক দুর্ঘটনায় তিন জেলায় ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত টাঙ্গাইল, কুষ্টিয়া ও গোপালগঞ্জে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। এতে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন।

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় লেগুনা উল্টে চারজন নিহত হয়েছেন। সকালে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গোড়াই এলাকার একটি পাম্পের সামনে দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় চিকিৎসাধীন আছেন আরও তিনজন।

নিহতরা হলেন, টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার আল আমিন মিয়ার স্ত্রী মর্জিনা বেগম (২৭), গাইবান্ধা জেলার সাদুল্যাপুর থানার গবিন্দরায় গ্রামের সুলতান মিয়ার স্ত্রী জাহানুর (১৮), একই গ্রামের অমল্য চন্দ্র দাসের ছেলে তপন চন্দ্র দাস (২৫) এবং রংপুরের রাশেদা বেগম।

আরও পড়তে পারেন :  শরীয়তপুরে আইসোলেশনে যুবকের মৃত্যু

এ ঘটনায় হেলেনা, পারভীন ও রেজিয়া নামের আরও ৩ জন আহত অবস্থায় মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

গোড়াই হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামান বলেন, সকালে উপজেলার গোড়াই থেকে যাত্রী নিয়ে আসা একটি লেগুনা পাম্পে জ্বালানি নিতে ঢোকে। এ সময় পেছন থেকে অজ্ঞাত একটি কাভার্ডভ্যান সেটিকে ধাক্কা দিলে গাড়িটি উল্টে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই দুইজনের মৃত্যু হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর ১টার দিকে আরও দুইজনের মৃত্যু হয়।

এদিকে, কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ট্রাকের ধাক্কায় শ্যালোইঞ্জিন চালিত গাড়ির চালক ও হেলপার নিহত হয়েছেন। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে কুষ্টিয়া-ভেড়ামার মহাসড়কের ১০ মাইল এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

আরও পড়তে পারেন :  সাবেক ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান আর নেই

নিহতরা হলেন, ভেড়ামারার বাহিরচর গ্রামের মোহর উদ্দিন শেখের ছেলে শ্যালো ইঞ্জিনচালিত গাড়ির চালক শুকুর আলী (৩৫) এবং একই গ্রামের আতাহার আলীর ছেলে হেলপার মো. আলামিন (১৮)। এ ঘটনায় রিপন নামে আরও একজন স্থানীয় পথচারী আহত হয়েছেন।

কুষ্টিয়া হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ রেজাইল করিম জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে পুলিশ। ট্রাকের চালক পলাতক এবং ট্রাকটি জব্দ করেছে হাইওয়ে পুলিশ।

অন্যদিকে, গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে বাসের ধাক্কায় জাফর মুন্সী (৬০) নামে এক বৃদ্ধ ভ্যানচালক নিহত হয়েছেন। দুপুরের দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলা কলেজমোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত জাফর মুন্সী মুকসুদপুর উপজেলার গোবিন্দপুর ইউনিয়নের কোলাকোনা গ্রামের কুদ্দুস মুন্সীর ছেলে।

আরও পড়তে পারেন :  করোনা নিয়ে আর ব্রিফ করবে না আইইডিসিআর

মুকসুদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মির্জা আবুল কালাম আজাদ জানান, কাশিয়ানী উপজেলার ভাটিয়াপাড়া থেকে মুকসুদপুরের বরইতলাগামী একটি লোকাল বাস মুকসুদপুর কলেজমোড়ে দ্রুতগতিতে এসে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ভ্যানের পেছনে ধাক্কা দেয়। এতে ভ্যানটি প্রায় ৫০ গজ দুরে গিয়ে রাস্তার পাশে ছিটকে পড়ে গেলে ভ্যানচালক জাফর মুন্সী মারাত্মক আহত হন।

 

বিনিয়োগ বার্তা//এল//

 

আপনার মতামত দিন :

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here