জিম্বাবুয়েকে হারাল বিসিবি একাদশ

45

নিউজ ডেস্ক, বিনিয়োগ বার্তা:
সৌম্য সরকারের সেঞ্চুরিতে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে হারাল বিসিবি একাদশ। ব্যাটে-বলে দাপট দেখিয়ে আট উইকেট বড় ব্যবধানে জয় পেল তারুণ্যনির্ভর স্বাগতিক দল। ছন্দে ফেরা সৌম্য ম্যাচ শেষে ১০২ রানে অপরাজিত ছিলেন।

বল হাতে দারুণ ছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড একাদশের এবাদত হোসেন। পেসার হান্টের আবিষ্কার এই বোলার চার বলের ব্যবধানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। সব মিলিয়ে জিম্বাবুয়ের ইনিংসে তিনি ৯ ওভার বল করে তিন মেডিন ওভারে মাত্র ১৯ রান দিয়ে নিয়েছেন পাঁচটি উইকেট। বল হাতে ঝলমলে ছিলেন দীর্ঘদিন পরে জাতীয় দলে ফেরা সাইফউদ্দীনও। ৩২ রান দিয়ে তার সংগ্রহ তিনটি উইকেট।

শুক্রবার সাভারের বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা পরিষদের (বিকেএসপি) তিন নম্বর মাঠে টসে জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় জিম্বাবুয়ে।তাদের ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই ওপেনার ক্রেইগ আরভিনকে (১) সাজঘরে ফিরিয়ে উইকেট পতনের শুভসূচনা ঘটান পেসার এবাদাত হোসেন।পরের ওভারে সাইফউদ্দীনে কাটা পড়েন ব্রেন্ডন টেলর। আউট হওয়ার আগে তিনি করেন ছয় রান। এরপর শন উইলিয়ামসকে নিয়ে মাসাকাদজা জুটি বাঁধার চেষ্টা করেন। কিন্তু দলীয় ১৫ রানে সেই আশাও নস্ট করেন এবাদত।

শুরুর ব্যাটিং বিপর্যয়ে পর প্রতিরোধ গড়ে তুলেন ওপেনার হ্যামিলটন মাসাকাদজা। দলীয় ৪৭ রানে ৫ ব্যাটসম্যানকে হারানোর পর এলটন চিগুম্বুরাকে নিয়ে জিম্বাবুয়ের ইনিংস ধরে রাখেন তিনি। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১৩৮ বলে ১০২ রান আসে মাসাকাদজার ব্যাট থেকে। তার ইনিংসটি সাজানো ছিল ১৪ চার এবং এক ছক্কায়। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৭ রান করেন চিগুম্বুরা। তাদের দুজনের ব্যাটে ভর করে ৪৫.২ ওভারে ১৭৮ রান তুলতে সক্ষম হয় অতিথিরা।

বিসিবি একাদশের হযে ১৯ রান দিয়ে পাঁচ উইকেট নেন এবাদত। তিনটি উইকেট নেন সাইফউদ্দীন। আর সমান একটি করে নেন মোহোর শেখ এবং ইমরান আলী।

১৭৯ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই দুই উইকেট হারায় বিসিবি একাদশ। দলীয় ১১ রানে ২০ বলে ৮ রান করে রাউনআউট হয়ে সাজঘরে ফিরেন মিজানুর রহমান। তার বিদায়ের পর জাতীয় দলে নতুন ডাক পাওয়া ফজলে রাব্বির সঙ্গে জুটি বাঁধতে চেষ্টা করেন সৌম্য সরকার। ৩৪ বলে ১৩ রান করে সিকান্দার রাজার বলে আউট হয়ে ফিরেন তিনি।

এরপর চাপ সামলে দলকে বিপর্যয়ের হাত থেকে রক্ষা করেন সৌম্য সরকার।মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে নিয়ে তিনি একাই প্রতিরোধ গড়ে তুলেন।গড়ে তুলেন ১১২ রানের পার্টনারশিপ।

ব্যক্তিগত ৩৩ রানে স্বেচ্ছায় অবসরে যান মোসাদ্দেক। এরপর আরিফুলকে সঙ্গী করে ১৩ চার ও ১টি ছক্কায় সেঞ্চুরি তুলে নেন সৌম্য। তার ইনিংসের উপর ভর করে মাত্র ৩৯ ওভারে আট উইকেটের জয় তুলে নেয় বিসিবি একাদশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে: ৪৫.২ ওভারে ১৭৮ (হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ১০২, আরভিন ১, টেইলর ৬, উইলিয়ামস ১, রাজা ৯, মুর ৪, চিগুম্বুরা ৪৭, মুসাকান্দা ০, মাভুটা ০, টিরিপানো ৩, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা ০*; এবাদত ৫/১৯, সাইফ ৩/৩২, মোহর ১/১৮, সৌম্য ০/৯, ইমরান ১/২৮, নাঈম ০/৩২, আরিফুল ০/১৪, মোসাদ্দেক ০/১৩, আফিফ ০/১৩)

বিসিবি একাদশ: ৩৯ ওভারে ১৮১/২ (মিজানুর রহমান ৮, ফজলে রাব্বি ১৩, সৌম্য সরকার ১০২, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ৩৩, আরিফুল হক ৯; সিকান্দার রেজা ২১/১)

ফলাফল: আট উইকেটে জয়ী বিসিবি একাদশ

 

বিনিয়োগ বার্তা//এল//

আপনার মতামত দিন :

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here