খেলাপি ঋণ: মিডিয়া মালিকদের দুষলেন প্রধানমন্ত্রী

45

১০ বছরেও সরকার খেলাপি ঋণের প্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করতে না পারার বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পত্রিকা ও টিভি মালিকদেরই দুষলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মিডিয়া মালিকরা কে কত টাকা ঋণ নিয়ে কত টাকা পরিশোধ করেছেন, সে হিসাব দিতে বলেছেন তিনি।

শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত বাজেটোত্তর সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্নোত্তর পর্বে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

২০০৯ সালে খেলাপি ঋণের পরিমাণ ছিল ২৩ হাজার কোটি টাকা, যা সর্বশেষ ১ লাখ ১১ হাজার কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে— বাংলাদেশ ব্যাংকের এই হিসাব তুলে ধরে একজন সাংবাদিক প্রধানমন্ত্রীর কাছে জানতে চান, সরকার সব ক্ষেত্রে সফল হলেও খেলাপি ঋণ নিয়ন্ত্রণে সফল হতে পারছে না কেন?

আরও পড়তে পারেন :  ‘সোনা ৩০ জুনের মধ্যে বৈধ করতে আহ্বান’

এ প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘খবর নেবেন, পত্রিকার মালিকরা কে কোন ব্যাংক থেকে কত টাকা ঋণ নিয়েছেন। সব ব্যাংক থেকে এই তথ্য বের করেন। যত মিডিয়া আছে, প্রত্যেকে বলবেন, কোন মালিক কোন ব্যাংকের কত টাকা ঋণ নিয়ে কত টাকা শোধ দেননি। খেলাপি হয়ে নিজেরা হিসাব করলে আমাকে আর প্রশ্ন করতে হবে না।’

পত্রিকা ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মালিকদের এই খেলাপি ঋণের হিসাব নিয়ে তবেই যেন পত্রপত্রিকায় এ বিষয়ে লেখা হয়, সেই আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। তাদের ঋণ পরিশোধে সাংবাদিকদের উদ্যোগ নিতেও বলেন প্রধানমন্ত্রী।

আরও পড়তে পারেন :  সঞ্চয়পত্রে বর্ধিত কর প্রত্যাহার হতে পারে

বেশি বেশি ঋণ খেলাপি হওয়ার কারণ তুলে ধরে খেলাপি ঋণ নিয়ন্ত্রণেও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আমাদের এখানে সুদের হার অনেক বশি। ব্যাংকগুলোতে চক্রবৃদ্ধি হারে সুদ হয়। আবার খেলাপি ঋণের হিসাব যখন দেওয়া হয়, চক্রবৃদ্ধি হারে সুদ যোগ হয়ে যে ঋণের পরিমাণটা দাঁড়ায়, সেই হিসাব প্রকাশ করা হয়। ফলে খেলাপি ঋণের পরিমাণ অনেক বেশি দেখায়। প্রকৃত ঋণ আসলে অতটা নয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, চক্রবৃদ্ধি হারে সুদসহ খেলাপি ঋণ ধরা হয়। এ ক্ষেত্রে আমাদের কিছু দুর্বলতা আছে। ধীরে ধীরে বিষয়গুলো অ্যাডজাস্ট করা হচ্ছে। আমরাও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছি। আর আমরা আগেও বলেছি, খেলাপি হয়ে যাওয়া ঋণও শোধ দেওয়ার সুযোগ দেবো। সেই প্রক্রিয়া চলছে।

আরও পড়তে পারেন :  মুঠোফোনে করারোপ বাতিলের দাবিতে গণসমাবেশ ২৫ জুন

সরকারি ব্যাংকের চলমান অবস্থা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে শুক্রবারও বৈঠক করেছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান।

বিনিয়োগ বার্তা//এল//

 

আপনার মতামত দিন :

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here