ইফতারে যে ফল খেলে থাকবেন শীতল

190

আলুর চপ, পেঁয়াজু, বেগুনি ছাড়া ইফতার অনেকেই ভাবতে পারে না। কিন্তু রোজার মাঝে এই খাবারগুলো খাওয়া খুব একটা স্বাস্থ্যকর নয়। রোজার সময় খাওয়া-দাওয়ার উপর বাড়তি সর্তকতার প্রয়োজন পড়ে। আর এবারের রোজা গরমের সময় হওয়ায় খাওয়া-দাওয়া নিয়ে একটু বেশি খেয়াল রাখার প্রয়োজন। ইফতারে অতিরিক্ত মসলা ও তৈলাক্ত খাবার খাওয়া কমিয়ে এমন কিছু খাবার রাখুন, যা আপনার শরীরকে ঠাণ্ডা রাখবে। শুধু তাই নয় সারাদিনের পানির চাহিদা পূরণ করবে সে খাবারগুলো।

কমলা

মৌসুমি ফল হলেও এখন প্রায় সারাবছরই কিন্তু কমলা পাওয়া যায়। কমলায় রয়েছে ৮০% পানি যা এই গরমে আপনার শরীরকে হাইড্রেইটেড রাখবে। এছাড়া এতে রয়েছে পটাসিয়াম, ভিটামিন বি১, ভিটামিন এ, ক্যালসিয়াম ও কপার। ইফতারিতে পান করতে পারেন এক গ্লাস কমলার রস।

আরও পড়তে পারেন :  গরম পানিতে আদা রসুন ও মধু খাওয়ার উপকারিতা

শসা

শসায় আছে ৯৫% পানি, ভিটামিন ও মিনারেল। ফলে শসা খেলে শরীর ভিতর থেকে ঠাণ্ডা করে থাকে। এতে ক্যালরি কম থাকে আর ফাইবার বেশি থাকে। তাই প্রতিদিন খাবারের শসা রাখতে চেষ্টা করুন। এমনকি শসার জুসও খেতে পারেন।

তরমুজ

গরমকালের অন্যতম একটি ফল হলো তরমুজ। তরমুজে ৯২% পানি যা শরীরের পানির চাহিদা পূরণ করে। এছাড়া এতে রয়েছে ভিটামিন এ, ভিটামিন বি৬, ভিটামিন সি, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও অ্যামিনো অ্যাসিড। ফলের রস কিংবা ফ্রুট স্যালাদ হিসেবে ইফতারের টেবিলে রাখতে পারেন তরমুজ।

আপেল

আপেল আপনার শরীরকে ঠাণ্ডা রাখতে সাহায্য করবে। আপেলে রয়েছে পেকটিন, ভিটামিন বি, ভিটামিন সি এবং অন্যান্য অ্যাসেনশিয়াল পুষ্টি উপাদান। সবুজ আপেল খাওয়াটা খুবই স্বাস্থ্যকর।

আরও পড়তে পারেন :  আন্তর্জাতিক মেল গ্রুমিং রেঞ্জ স্টুডিও এক্স-এর যাত্রা শুরু

আনারস

ফ্রুট স্যালাদ কিংবা স্মুদিতে আনারস ব্যবহার করতে পারেন। এতে রয়েছে ব্রোমেলিন যা এনজাইমের অন্যতম একটি উৎস। এছাড়া আনারসে ভিটামিন সি, ভিটামিন বি৬, ফাইবার, ভিটামিন বি১, ম্যাগনেসিয়াম, প্যানটোথেনিক অ্যাসিড রয়েছে।

এছাড়াও এই গরমে শরীর ঠাণ্ডা রাখতে খেতে পারেন টক দই। টক দই শুধু শরীরকেই ঠাণ্ডা রাখে না, বরং খারাপ কোলেস্টেরল, ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে।

 

বিনিয়োগ বার্তা//এল//

আপনার মতামত দিন :

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here