অপূর্ব আয়োজন ‘রাতের জলসাঘর’

0
12
রাতের জলসাগর মহরত
রাতের জলসাগর মহরত

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিনিয়োগবার্তা:

বিশিষ্ট সুরকার-সঙ্গীত পরিচালক মইনুল ইসলাম খান তার সহধর্মিনী জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত সঙ্গীতশিল্পী কনকচাঁপা জন্য নতুন একটি গান করেছেন মইনুল ইসলাম খান। গানের কথা হচ্ছে ‘রাতের জলসা ঘরে নাচে চন্দ্রমুখী, দেবদাস জানেনা সে কতো দুঃখী’। কথা লিখেছেন হুমায়ূন কবির। এর সুর সঙ্গীত করেছেন মইনুল ইসলাম খান।

গানটি সম্পর্কে কনকচাঁপা তার ফেসবুক পেইজে লেখেছেন ‘অপূর্ব একটি আয়োজন। রাতের জলসাঘর। সুর, সংগীত, ও ভিডিও চিত্র পরিচালনা মইনুল ইসলাম খান, গীতিকার হুমায়ুন কবির, চিত্র গ্রাহক জেড এইচ মিন্টু,কোরিওগ্রাফার মুত্তাকিনুর ওয়াসেক, দেবদাস বিপ্লব সাহা,চন্দ্রমুখী হিমি, পার্বতী অনন্যা। সব মিলিয়ে একটি অপূর্ব টিম ওয়ার্ক।আমি ধন্য।শ্রোতারা! আমি আবার ধন্য হব এবং আমাদের সকলের শ্রম সার্থক হবে যদি এই সামান্য প্রয়াস আপনাদের ভালো লাগে।আপনাদের ভালো লাগাই আমার ও আমাদের পাথেয়।

অনেক জল্পনা কল্পনার পর এ গানে কন্ঠ দিয়েছেন কনকচাঁপা। কিন্তু ঘটনা এখানেই শেষ নয় মইনুল ইসলাম খানের সঙ্গীত জীবনের ৩৮ বছরে এবং কনকচাঁপার সঙ্গীত জীবনের ৩৪ বছরে যা আগে কখনোই ঘটেনি, তাই ঘটেছে এবার। নিজের গাওয়া এই গানটি নিয়ে প্রথমবারের মতো কনকচাঁপা কোনো মিউজিক ভিডিওতে অংশগ্রহণ করেছেন। এটি নির্মাণ করেছেন মইনুল ইসলাম খান। দীর্ঘ সঙ্গীত জীবনের দু’জনের ক্ষেত্রেই এটি নতুন ঘটনা। শুধু তাই নয় মিউজিক ভিডিওটি নির্মাণের ক্ষেত্রে শিল্প নির্দেশক হিসেবে কাজ করেছেন কনকচাঁপা।

গত বুধবার রাজধানীর বেঙ্গল স্টুডিওতে মিউজিক ভিডিওটির দৃশ্য ধারণের কাজ শেষ হয়েছে। এতে সিনেমাটোগ্রাফার হিসেবে কাজ করেছেন জেড এইচ মিন্টু এবং কোরিওগ্রাফার হিসেবে কাজ করেছেন মোত্তাকিনূর রহমান ওয়াসেক। দেবদাস চরিত্রে মিউজিক ভিডিওতে অভিনয় করেছেন বিপ্লব সাহা, পাবর্তী চরিত্রে অনন্যা বনিক এবং চন্দ্রমুখী চরিত্রে অভিনয় করেছেন কত্থক নৃত্যশিল্পী ও অভিনেত্রী হিমি।

মইনুল ইসলাম খান জানান, যারা এতে মডেল হিসেবে অভিনয় করেছেন তাদের কেউই পারিশ্রমিক নেননি।

মিউজিক ভিডিওটির নির্মাণ প্রসঙ্গে মইনুল ইসলাম খান গণমাধ্যম কে বলেন, ‘আমার কাছে সবসময়ই মনে হয়েছে গান হচ্ছে শুধুমাত্র শোনার বিষয়। কিন্তু গান এখন দেখারও বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর এটা সময়ের দাবি। তাই আমার একান্ত ভালোলাগার একটি গান দিয়েই নির্মাতা হিসেবে আমার যাত্রা শুরু।’

গণমাধ্যম কে কনকচাঁপা বলেন, ‘গানটি যখন তিনি তৈরি করেন তখন আমার মনে মনে ভীষণ ইচ্ছে ছিলো যে গানটি যেন আমি করি। কারণ তাঁর কাজ সবসময়ই আমার কঠিন মনে হয়, আবার চূড়ান্ত কাজ শেষে খুব সুন্দরও হয়। যাই হোক শেষ পর্যন্ত গানটি আমি গেয়েছি। শিল্পী নির্দেশক হিসেবে কাজটি করেও ভালো লেগেছে। বিশেষ করে বাইজী ঘরের মোঘল আমলের কিছু ছবি আমার মনের মতো করেই আঁকা।’

মইনুল ইসলাম খান জানান, আসছে ঈদে বিভিন্ন চ্যানেলে এবং ইউটিউবে তার প্রথম মিউজিক ভিডিওটি দেখা যাবে।

উল্লেখ্য মিউজিক ভিডিওটির শুরুতে কনকচাঁপার গানে গানে দেবদাস, পার্বতী ও চন্দ্রমুখীর গল্প উঠে আসবে।
বিনিয়োগবার্তা/আর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here